ওয়াশিংটনে রাবিয়ানদের প্রথম মিলনমেলা

387

 

ওয়াশিংটন ডিসিঃজীবনের তারুণ্যদীপ্ত সময়টুকু কেটেছে যে ক্যাম্পাসে। সেই ক্যাম্পাসের বন্ধু-বড়-ছোট অথবা শিক্ষকের সাথে যখন মিলিত হওয়ার সুযোগ মেলে, তখন জীবনটা হয়ে উঠে আনন্দময়। সাময়িক সময়ের জন্য হলেও ফিরে যায় স্মৃতির পাতায়। রোমান্থিত হয়ে উঠে জীবনের ফেলে আসা দিনগুলোর কথা ভেবে।

বলছিলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াশিংটনডিসিতে অবস্থানরত রসায়ন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ড. সাদ আহমেদ এর কথা।

তিনি জানান, টানা দুই ঘন্টা লং ড্রাইভ করে মিলন মেলায় এসেছে, তবে জর্নিতে ক্লান্তি থাকলেও, মানসিক স্বস্তির কাছে সেই ক্লান্তির নেই কোন লেশ মাত্র। আছে মিলনমেলায় অংশ নেওয়ার তীব্র ভালো লাগার অনুভূতি।

‘এসো মিলি শেকড়ের টানে, রাবিয়ানরা এক সাথে’ এই স্লোগানে গত ২৩ অক্টোবর (শনিবার) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, ওয়াশিংটন ডিসির উদ্যাগে Gwen Thompson Briar Patch Park, এ প্রথমবারের মতো বনভোজন ও মিলনমেলার আয়োজন করা হয়। ঐতিহাসিক এই মিলনমেলায় রাবির সাবেক শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ তাদের পরিবারের প্রায় শতাধিক সদস্য অংশ নেয়।

করোনায় ঘরবন্দী মানুষের জীবনে একচিলতি প্রশান্তি ছড়াতে ও পরস্পারিক সম্পর্ক বৃদ্ধির জন্য এই আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানটি সকাল ১০ থেকে শুরু হয়ে চলে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত।

অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে রাবির সাবেক শিক্ষার্থীরা মতিহার জীবনে ফেলা আসা ক্যাম্পাসের টুকিটাকি চত্বর, প্যারিস কিংবা তুতবাগানসহ শ্রেণীর কক্ষের নানা স্মৃতিচারণ করেন। তারা আবারও ক্যাম্পাস জীবনে ফিরে যাওয়ার আকুতি ব্যক্ত করেন।

অংশগ্রহণকারীরা বলেন, একেক জনের ভিন্ন ভিন্ন বিভাগের থাকলেও, ক্যাম্পাসের স্মৃতি সকলের এক রকম। তাই ওয়াশিংটনের বুকে ক্যাম্পাসের শিক্ষক, বন্ধু, বড়-ছোট সবাইকে পেয়ে স্মৃতিতে ফিরে গেলাম।

সাংবাদিক জাহিদ রহমানের কন্যা জাফরা রহমানের কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে মিলনমেলা শুরু হয়।

প্রথমে ছিল পরিচিতি পর্ব, পরে স্মৃতিচারণ, খাওয়া দাওয়া ও কোট কাটার আয়োজন। দিন ভর উৎসবে সাংস্কৃতিক পর্বে গান পরিবেশ করেন জুয়েল বড়ুয়া,লাবন্য হসনা সহ অন্যরা।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, ওয়াশিংটন ডিসির উদ্যোক্তা সাংবাদিক জাহিদ রহমানকে এলামনাই এর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন রাবির সাবেক শিক্ষক ড. মুশফিকুর রশিদ।

মিলনমেলায় উপস্থিত ছিলেন,রাবির সাবেক রেজিস্টার ড. মোহাম্মদ এন্তাজুল হক, ড.আশরাফ আহমেদ, ড.মুশফিকুর রশিদ, ড.আতিয়ার রহমান, ড.নজরুল ইসলাম, ফিরোজ, ড.সাদ আহমেদ কবির, নাজরিন জাওরদার, ফাতেমা সিদ্দিক, জেসমিন কবির,খানম তুহলফা হক, আশরাফুন নেছা ( লিপি) ,আরিজা মাহিদ(টিবা),সালমা রহমান, ড.ইয়াসমিন,শামিমা আহমেদ,মোহাম্মদ মঞ্জুরুল আলম, মোজাম্মেল হোসেন(জিল্লু), মোহাম্মদ আজাদ,আজিজুর রহমান,  দেওয়ান মনিরুল হক হিমু, কার্ত্তিক, এ এস এম চৌধুরী, মোহাম্মদ আব্দুল হাই সিদ্দিক   সহ ৩৫ জন রাবির সাবেক শিক্ষার্থী।

রাবির সাবেক রেজিস্টার ড.মোহাম্মদ এন্তাজুল হক বলেন, ওয়াশিংটনে রাবির এত শিক্ষার্থীকে দেখে আমার খুবই ভালো লেগেছে। খুবই গর্ব হচ্ছে ওয়াশিংটন ভিত্তিক রাবির এলামনাই হতে যাচ্ছে দেখে। এই সংগঠনের সাফল্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

অনুষ্ঠান সঞ্চলনায় ছিলেন, আবু জাফর, কাজি ওয়াহিদুজ্জামান স্বপন এবং জাহিদ রহমান।

আয়োজকরা জানান, আমাদের অন্যতম লক্ষ্য থাকবে ওয়াশিংটনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কেউ আসলে সহযোগিতা করা। একইসাথে সংগঠনটি কমিউনিটির কল্যানে ও শিক্ষার্থীদের মান উন্নয়নে কাজ করতে চায়।

ওয়াশিংটনে পথচলা শুরু হওয়া রাবি এলামনাইকে আনুষ্ঠানিক রুপ দিতে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। যে কমিটির হাত ধরে প্রসার লাভ করবে এলামনাইয়ের। কমিটির সদস্যরা হলেন- জেসমিন কবির, ড.ফরিদা ইয়াসমিন,কাজী ওয়াহিদুজ্জামান স্বপন, মোহাম্মদ মঞ্জুরুল আলম, আজিজুর রহমান, সুমন,জাহিদ রহমান।

উপদেষ্টা হিসেবে থাকবেন- রাবির সাবেক শিক্ষক  সাবেক রেজিস্টার ড. মোহাম্মদ এন্তাজুল হক, ড. মুশফিকুর রশিদ, ড.আশরাফ ও  ইঞ্জিনিয়ার ড.নজরুল ইসলাম  ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.