কুষ্টিয়া ছাত্রদলের ৩১ সদস্যের কমিটির ১১ জনই বিবাহিত-চাকরিজীবী

23

কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের সদ্যঘোষিত ৩১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির ১১ জনই বিবাহিত এবং চাকরিজীবী। আবার অনেকেরই ছাত্রত্ব নেই। থাকেন রাজধানী ঢাকায়। আন্দোলন-সংগ্রামসহ দলের কোনো কর্মকাণ্ডেও তাদের কখন দেখা যায়নি। অর্থের বিনিময়ে এমন পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছে দলটির নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টার দিকে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের এম এ রাজ্জাক মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা এসব অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে কমিটির আহ্বায়ক পদপ্রত্যাশী ছাত্রদল নেতা রাকিবুল ইসলাম রাব্বি জানান, গত বছরের ২৫ নভেম্বর কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর কারো সঙ্গে কোনো যোগাযোগ ছাড়াই কুষ্টিয়া জেলা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ব্যবসায়ী প্রকৌশলী জাকির হোসেন সরকার। তিনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে আঁতাত করে বিএনপিকে দুর্বল ও ধ্বংস করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝিয়ে সিনিয়র এবং ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে গত ১৭ নভেম্বর ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন করিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে নেতারা অভিযোগ করেন, সদ্যঘোষিত আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব খন্দকার তসলিম উদ্দিন নিশাতসহ কমিটির ১১ জনই বিবাহিত। এদের মধ্যে কেউ কেউ আবার চাকরিজীবী। আবার অনেকেরই এখন আর ছাত্রত্ব নেই। দলটির কোনো কমিটিতেই বিগত দিন এরা ছিলেন না। ছাত্রদলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক জেলা কমিটিতে ২০০৩ সালে এসএসসি পাশ করা ছাত্রদের দিয়ে কমিটি গঠনের নির্দেশনা থাকলেও অদৃশ্য কারণে ২০১০ সালে এসএসসি পাশ জুনিয়র ছাত্রদের দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে জেলা ছাত্রদলের সদ্যঘোষিত আহ্বায়ক কমিটিকে পকেট কমিটি ঘোষণা দিয়ে কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়। একইসঙ্গে কমিটি বাতিল এবং মামলা-হামলার শিকার দলটির ত্যাগী নেতাদের দিয়ে নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠনের জন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে অনুরোধ জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যের মধ্যে ছাত্রদলের পদপ্রত্যাশী নাহিদুল ইসলাম রুপল, রোকনুজ্জামান রাসেল, আশরাফুল ইসলাম অনিক, সাগির কোরাইশি, আহমেদ হাসান আশরাফি অভিকসহ প্রায় অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ নভেম্বর ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসন শ্যামল স্বাক্ষরিত ৩১ সদস্যবিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। সদ্যঘোষিত আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি করা হয়েছে মোস্তাফিজুর রহমান রাব্বিকে এবং সদস্য সচিব করা হয়েছে খন্দকার তসলিম উদ্দিন নিশাতকে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.