বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কাটাখালি পৌর মেয়রের বিতর্কিত অডিও

55

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ উঠেছে রাজশাহীর কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর নামে। এই কটূক্তির ফাঁস হওয়া অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

রোববার (২১ নভেম্বর) রাত থেকে অডিওটি ছড়িয়ে পড়লে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়।

আব্বাস আলী কাটাখালি পৌরসভায় নৌকা প্রতীকে দুইবার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি একইসঙ্গে পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।

ফাঁস হওয়া অডিওতে বলতে শোনা যায়, মুর‌্যাল স্থাপন ইসলামের দৃষ্টিতে ‘পাপ’, তাই রাজশাহী সিটি গেটে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল না বসানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। মুর‌্যাল স্থাপন না করার খবর ফাঁস হলে তার রাজনীতির ‘বারোটা বাজবে’ এমন কথাও বলতে শোনা যায়।

তবে পুরো ঘটনাটি অস্বীকার করেছেন মেয়র আব্বাস আলী। মেয়রের দাবি, মুর‌্যাল স্থাপন করা যাবে না এমন কথা তিনি বলেননি।

এক মিনিট ৫১ সেকেন্ডের ওই অডিওতে শুধু মেয়রের বক্তব্য শোনা যায়। তিনি কে বা কাদের সঙ্গে কথা বলছিলেন সেটি জানা যায়নি। অডিওতে এক পর্যায়ে একজনকে হাসতে শোনা যায়। এছাড়া কিছু অংশে অন্য একজনকে কথা বলতে শোনা গেলেও তা অস্পষ্ট। এটি কে বা কারা কবে ধারণ করেছেন, সেটি জানা যায়নি। কারাই বা সেটি ফেসবুকে ছেড়েছে, সেটিও অজানা।

মেয়রকে বলতে শোনা যাচ্ছে, ‘সিটি গেট আমার অংশে। যে ফার্মকে দিয়েছি তারা বিদেশি স্টাইলে সাজিয়ে দেবে; ফুটপাত, সাইকেল লেন টোটাল আমার অংশটা। কিন্তু একটু থেমে গেছি গেটটা নিয়ে। একটু চেঞ্জ করতে হচ্ছে… যে মুর‌্যালটা দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর সেটা ইসলামী শরিয়ত মতে সঠিক নয়। এজন্য আমি ওটা থুব না, সব করবো তবে শেষ মাথাতে যেটা… ওটা (মুর‌্যাল)। ‘

মেয়র আব্বাস আলী বলছেন, আমাকে যেভাবে বুঝাইছে আমি দেখতে পাচ্ছি যে মুর‌্যালটা ঠিক হবে না দিলে; আমার পাপ হবে; তো কেন দেব? দেব না। আমিতো কানা লোক না, যেভাবে বোঝাইছে তাতে আমার মনে হয়েছে মুর‌্যালটা হলে আমার ভুল করা হবে। এ খবরটা যদি যায় তাহলে আমার রাজনীতির বারোটা বাজবে; এই মুর‌্যাল দিত চেয়ে দিচ্ছে না। তাহলে বঙ্গবন্ধুকে খুশি করতে গিয়ে আল্লাহকে নারাজ করবো নাকি। এজন্য কিছু করার নেই। মানুষকে সন্তুষ্ট করতে গিয়ে আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করা যাবে না।

তবে, অডিওটি তার নয় বলে দাবি করেছেন মেয়র আব্বাস আলী। তিনি বলেন, মুর‌্যাল করা যাবে না, মুর‌্যাল করলে পাপ হবে, এ ধরনের কথা আমার সঙ্গে করাও হয়নি।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি করলে তার আওয়ামী লীগ করার অধিকার থাকে না। কাটাখালির মেয়র বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যদি কোন কটূক্তি করে থাকেন তার বিরুদ্ধে দলীয় ও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.